দেশ

ভারত সরকারের এই নতুন স্কিমের দরুন খালি পড়ে থাকা জমি থেকে ৮০ হাজার টাকা উপার্জন করতে পারবে দেশের কৃষকেরা…


নিম্ন ফলনশীল বা খালি পড়ে থাকা জমি সাধারণত কৃষকদের কোনও কাজে লাগে না। আর এবার সেই পড়ে থাকা জমি থেকেই উপার্জন করতে পারবেন তাঁরা। এমনই সুযোগ তাঁদের দেওয়া হচ্ছে সরকারের তরফ থেকে। সৌর শক্তি অর্জনের লক্ষ্যে সরকার কৃষকদের বর্জ্য জমি ব্যবহার করতে চাইছে। যার জন্য কৃষকদের খালি জমিতে সোলার প্ল্যান্ট লাগানোর পরামর্শ দিচ্ছে সরকার। সোলার প্ল্যান্টের জন্য কোনও কৃষক যদি এক একর জমি প্রদান করেন তাহলে তিনি বার্ষিক ৮০ হাজার করে পাবেন। আর যে জমিতে সোলার প্ল্যান্ট লাগানো হবে সেই জমিতে চাইলে কৃষকরা ছোটখাটো সবজির চাষ করতে পারেন।

ফলে সেখান থেকেও উপার্জন করতে পারবেন তাঁরা। সরকার এই প্রকল্পের নাম দিয়েছে সোলার স্কিম। যে সব চাষীদের কাছে নিজস্ব মূলধন নেই তাঁরা জমি লিজে দিতে পারেন এই সোলার প্ল্যান্ট লাগানোর জন্য। এক মেগাওয়াট সৌর বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের জন্য ৫ একর জমি প্রয়োজন। আর এক মেগাওয়াটের সোলার প্ল্যান্ট থেকে বার্ষিক ১১ লাখ ইউনিট বিদ্যুৎ উৎপাদিত হয়। কৃষকরা তাদের জমি যে ডেভলপার্সকে দেবে তাঁরাই কৃষকের জমিতে সোলার প্ল্যান্ট লাগাবে।

এর জন্য ওই ডেভলপার্স কৃষককে প্রতি ইউনিট প্রতি ৩০ টাকা করে দেবে। এর থেকে মাসে কৃষকদের ৬ হাজার এবং বছরে প্রায় ৮০ হাজার টাকা পর্যন্ত রোজগার হবে। কৃষকদের জমিতে লাগানো সোলার প্ল্যান্ট থেকে যে বিদ্যুৎ উৎপন্ন হবে তা কেনার জন্য বিদ্যুৎ বিতরণ সংস্থা (ডিসকম)কে সরকার অর্থ প্রদান করবে। সরকারের পরিকল্পনা অনুযায়ী, প্রতি ইউনিট ৫০ পয়সা করে ভর্তুকি দেওয়া হবে। কৃষকরা চাইলে শেড লাগিয়ে তার ওপর সোলার প্যানেল লাগাতে পারেন ও শেডের নীচে চাষ করতে পারবে তারা ।

কেন্দ্রীয় সরকার আগামী ২০২২ সালের মধ্যে দেশে কৃষকদের রোজগার দ্বিগুণ করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। এই প্রকল্প সেই পরিকল্পনারই এটা একটা অংশ। মন্ত্রক বলছে, অনেক সময়ই সেচের অভাবে জমির ফলনশীলতা কমে যায়। কৃষকরা সেই জমি চাষের কাজে সেইভাবে আর ব্যবহার করতে পারে না। সেই সব জমি ফেলে না রেখে কৃষকরা এইভাবে তা ব্যবহার করলে কৃষকরা লাভের মুখ দেখতে পারবেন।

Related posts

Close